এ বারের পুজো কাটল ‘মা’ এর হাতের রান্না খেয়ে

পড়ার সময়: ২ মিনিট

সারা বিশ্ব যখন করোনার কবল এ দিশেহারা, সকলে গৃহবন্দী তখন আমাদের বাড়ির বাইরে না বেড়িয়েও বাড়ির রান্না পৌঁছে দেওয়া শুরু করলেন শহরের কিছু হোম শেফ। শ্রাবণী মুখার্জির কাছে রান্না করা হল একটা প্যাশন। জীবন এর অনেকটা বছর পাঁচতারা রেস্তরাতে কাটিয়ে অনেক প্রকার রান্না ওনার নখদর্পণে। অনেক দিনের ইচ্ছে ছিল মা’স সোল কিচেন এর প্রতিষ্ঠাতা শ্রাবণী মাসীমার হাতের রান্না চেখে দেখবো। সেটা এই বছরের দুর্গা পুজোর থেকে আর কি ভাল সুযোগ হতে পারত। বাড়িতে থাকা, পরিবারের সাথে সময় কাটানো আর সঙ্গে মাসীমার হাতের রান্না।

ভাজাভুজি

চপশিল্পপ্রেমী বাঙালীদের কাছে ভেটকি মাছের ফিশ ফ্রাই বা চিকেন কাটলেট ছাড়া কোনো ভুরিভোজের শুরু হয়কি !!! পেঁয়াজ, আদা, রসুন, কাঁচালঙ্কা আর ধনেপাতা বাটা দিয়ে লেবুর রসে জারানো ভেটকি মাছের ফিলেগুলো মুচমুচে সোনালি করে ডুবোতেলে ভেজে তোলা, কেয়াবাৎ। কিন্তু মাছের টুকরোগুলো আরেকটু পুরু আর ছোট হলে জমে যেত একেবারে।

কিন্তু তাই বলে চিকেন কাটলেট টাও কোন অংশে কম যায় না। কাসুন্দির সাথে মাংসের কিমার পুরভরা চিকেন কাটলেটের যুগলবন্দী প্রথম পাতে লাজবাব।

পোলাও

মাটন ইয়াখনি পোলাও – জানেনত সেটা কি? তাও বলি , বেশ বড় বড় মাটনের টুকরো গুলোকে সুগন্ধি গোটা মশলার সঙ্গে সেদ্ধ করে স্টূ করা হয়। তারপর এর সাথে লম্বা দানা বাসমতী চাল আর বেরেস্তা মিলেমিশে তৈরী হয় এই আওয়াধি পোলাও।

আরেক ধরনের পোলাও কিন্তু একেবারেই মিস করা যাবে না সেটা হল, ঢাকাই মোরগ পোলাও। এক্ষেত্রে পুরো রান্নাটাই হয় ঘি দিয়ে। প্রচুর মশলার ব্যবহার ছাড়াই শুধুমাত্র দুধ, বাসমতী চাল, মাংস, বেরেস্তা, আর গরম মশলা দিয়ে তৈরী এই পোলাও এর স্বাদ কিন্তু মুখে লেগে থাকার মত। এখানে যদিও মোরগ এর জায়গায় দেশী মুরগী থাকাতে স্বাদের কোন হেরফের হয়নি। একটাই বলার কথা চালটা আর একটু ঝরঝরে হলে ভাল হত।

মাছ – মাংস

এবার আসি মাছ মাংসের পর্বে। চিকেন রেজালা নামটা শুনলেই নিশ্চয়ই খুব খিদে পাচ্ছে। রেজালার পাতলা সুগন্ধি হাল্কা মিষ্টি ঝোল, সঙ্গে আদা আর পেঁয়াজের ঝাঁঝ, যে কোন পোলাও এর সঙ্গে এটা কিন্তু জমে যাবে।

সব হয়ে গেলে চিংড়িই বা বাদ যায় কেন!! গলদা চিংড়ির মালাইকারি – নারকোলের দুধ আর বড় বড় গলদা চিংড়ির, মখমলী মালাইকারি ঝোল, পোলাও এর সঙ্গে বেশ মাখোমাখো ব্যাপার।

মিষ্টি মুখ

এই রাজকীয় দুর্গা পুজোর ভোজনের পরে শেষ পাতে মিষ্টি না হলে চলে! রসমালাই – তুলতুলে ছানার রসগোল্লা ছোট এলাচ দেওয়া ঘন দুধের মালাইতে টলমল করছে। তবে, রসগোল্লাগুলো মালাইতে আর বেশ কিছুক্ষণ ডোবান থাকলে হয়ত স্বাদটা আরেকটু খুলে যেত।

ক্ষীরের মালপোয়া – সবশেষে বাজিমাত করতে হাজির গরম গরম রসে টইটম্বুর ক্ষীরের মালপোয়া, শেষপাতে কেল্লাফতে।

লোভ সামলানো যাচ্ছে না? তাহলে ফোন করে ফেলুন – ৯৮৩০১৪৪৮৪৪ অথবা ৯৮৩৬১৫৪৯৪০।

আমার সাথে যোগাযোগ করতে – ই-মেইল: souvik25@gmail.com । মোবাইল: ৯০৫১১৬৬৭০০

ইংলিশ পোস্ট

One Comment Add yours

Leave a Reply